বিখ্যাত মহাকাব্য


সাধারণত বীর রসাত্মক আখ্যানকাব্যকে মহাকাব্য বলে। স্বর্গ, মর্ত্য ও পাতাল পরিব্যাপ্ত লৌকিক-অলৌকিক-পৌরাণিক বিশালায়তন আখ্যানকে মহাকাব্য বলে।পাশ্চাত্য আদর্শানুসারে মহাকাব্য হচ্ছে বীরত্বব্যঞ্জক কাহিনি। মহাকাব্যের প্রধান পাত্র-পাত্রী সর্বদা দেবতা নতুবা উচ্চ বর্ণের অভিজাত ক্ষমতাবান মানুষেরা হয়ে থাকেন। মহাকাব্যের ভাষা সর্বদা ধ্রুপদী, গুরুগম্ভীর এবং রসগুরু রুচিসম্পন্ন হয়ে থাকে। বেশিরভাগ মহাকাব্যেই অলৌকিকতার প্রাধান্য লক্ষ করা যায়।


বাংলা সাহিত্যের প্রথম ও শ্রেষ্ঠ মহাকাব্য


মাইকেল মধুসূদন দত্ত রচিত ‘মেঘনাদবধ কাব্য (১৮৬১)। এটি রামায়ণের কাহিনি অবলম্বনে বীর রসের অমিত্রাক্ষর ছন্দে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্য প্রভাবের সংমিশ্রণে রচিত সর্বপ্রথম, সর্বশ্রেষ্ঠ ও সার্থক মহাকাব্য। চরিত্র: রাবণ, মেঘনাদ, লক্ষ্মণ, রাম, প্রমীলা, বিভীষণ, সীতা ।

পাশ্চাত্য মহাকাব্য কয়ভাবে বিভক্ত


পাশ্চাত্য মহাকাব্য দুই ভাগে বিভক্ত । যথা:

১. জাত মহাকাব্য: এ মহাকাব্য কোন বিশেষ কবির রচনা নয়, এতে থাকে বহু অজানা কবির অসংখ্য রচনা যা পরবর্তীতে কেউ একত্রিত করে অখণ্ড রূপ দেন । জাত মহাকাব্য চারটি। যথা:
ক. মহাভারত, খ. রামায়ণ, গ. ইলিয়াড, র্ঘ. ওডিসি।

২. সাহিত্যিক বা অনুকৃত মহাকাব্য: পুরান ইতিহাস থেকে কাহিনি নিয়ে একজন কবি তাঁর সাহিত্যিক প্রতিভার গুণে নতুন রূপ দেয়াকে সাহিত্যিক বা অনুকৃত মহাকাব্য বলে । যেমন- মিলটনের ‘প্যারাডাইস লস্ট’ ।


বিখ্যাত মহাকাব্য

 

রচয়িতা

মহাকাব্য

বাল্মীকি

‘রামায়ণ’: এটি সংস্কৃত ভাষায় রচিত। এর প্রথম বাংলা অনুবাদক কৃত্তিবাস এবং প্রথম মহিলা অনুবাদক চন্দ্রাবতী ।

বেদব্যাস

‘মহাভারত’: এটি সংস্কৃত ভাষায় রচিত। এর প্রথম বাংলা অনুবাদক কবীন্দ্র পরমেশ্বর। তিনি এর নাম দেন ‘পরাগলী মহাভারত' । শ্রেষ্ঠ অনুবাদক কাশীরাম দাস ৷

ফেরদৌসী(ইরান/পারস্যের) |

‘শাহনামা’ (৯৭৭-১০১০): এটি ফারসি ভাষায় রচিত মহাকাব্য যা বাংলায় অনুবাদ করেন মোজাম্মেল হক।

নবীনচন্দ্র সেন

‘রৈবতক’, ‘কুরুক্ষেত্র’, ‘প্রভাস’: এ তিনটিকে একত্রে ত্রয়ীমহাকাব্য বলে ।

সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী

‘স্পেন বিজয় কাব্য': স্পেনের সম্রাট রডরিকের সাথে মুসলিম বীর তারেকের সংগ্রাম কাহিনি।

হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়

‘বৃত্রসংহার’ (১ম খণ্ড: ১৮৭৫, ২য় খণ্ড: ১৮৭৭)

হোমার (গ্রিক কবি)

‘ইলিয়াড’, ‘ওডিসি'

ভার্জিল

‘ইনিড’ (৩০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ)

জন মিল্টন

‘প্যারাডাইস লস্ট’

হামিদ আলী

‘কাশেমবধ কাব্য'

যোগীন্দ্রনাথ বসু

‘পৃথ্বীরাজ', 'শিবাজী'

আনন্দচন্দ্র মিত্র

‘হেলেনা কাব্য’

 

এই পোস্টগুলি আপনার ভাল লাগতে পারে:

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন