গুরুত্বপূর্ণ বাক্য সংকোচন / এক কথায় প্রকাশ


বিসিএস সহ যে কোন প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার জন্য গুরুত্বপূর্ণ বাক্য সংকোচন / এক কথায় প্রকাশ ।এখানে থেকে যে কোন নিয়োগ পরীক্ষায় কমন পড়বেই । কারণ বিগত সালের প্রশ্ন বিশ্লেষণ করে এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে। একটানা মুখস্থ করে ফেলুন এই এক কথায় প্রকাশ বা বাক্য সংকোচন।


গুরুত্বপূর্ণ বাক্য সংকোচন / এক কথায় প্রকাশ
গুরুত্বপূর্ণ বাক্য সংকোচন / এক কথায় প্রকাশ

বাক্য সংকোচন / এক কথায় প্রকাশ কাকে বলে?

একাধিক পদ বা উপবাক্যকে একটি শব্দে প্রকাশ করা হলে, তাকে বাক্য সংক্ষেপণ বলে। এটি বাক্য সংকোচন বা এক কথায় প্রকাশেরই নামান্তর। বাক্য তথা ভাষাকে সুন্দর, সাবলীল ও ভাষার অর্থ প্রকাশের দীপ্তিকে সমুজ্জ্বল করার জন্য বাক্য সংকোচন বা এক কথায় প্রকাশ অতীব গুরুত্বপূর্ণ। বহুপদকে একপদে পরিণত করার মধ্য দিয়ে বাক্য বা বাক্যাংশের সংকোচনের কাজ চলে ।

 

ক্রমিক নং

গুরুত্বপূর্ণ বাক্য সংকোচন / এক কথায় প্রকাশ

ডাক

অশ্বের ডাক  =  হ্রেষা

ময়ূরের ডাক  =  কেকা

বাঘের ডাক  =  গর্জন

পেঁচা বা উলূকের ডাক  =  ঘূৎকার

পাখির ডাক  =  কূজন / কাকলি

কোকিলের ডাক  =  কুহু

কুকুরের ডাক  =  বুক্কন

মোরগের ডাক  =  শকুনিবাদ

হাতির ডাক  =  বৃংহিত / বৃংহণ

১০

সিংহের নাদ / ডাক  =  হুংকার

১১

রাজহাঁসের কর্কশ ডাক  =  ক্রেঙ্কার

ধ্বনি

১২

অলংকারের ধ্বনি  =  শিঞ্জন

১৩

গম্ভীর ধ্বনি  =  মন্ত্র

১৪

অব্যক্ত মধুর ধ্বনি  =  কলতান

১৫

আনন্দজনক ধ্বনি  =  নন্দিঘোষ

১৬

ঝনঝন শব্দ  =  ঝন‍কার

১৭

শুকনো পাতার শব্দ  =  মর্মর

১৮

ভ্রমরের শব্দ  =  গুঞ্জন

১৯

সমুদ্রের ঢেউয়ের শব্দ  =  কল্লোল

২০

বাদ্যযন্ত্রের ধ্বনি  =  ঝংকার

২১

ধনুকের ধ্বনি  =  টংকার

২২

বীরের গর্জন  =  হুংকার

২৩

সেতারের ঝংকার  =  কিঙ্কিনি

২৪

আনন্দের আতিশয্যে সৃষ্ট কোলাহল  =  হর্ রা

২৫

বিহঙ্গের ধ্বনি  =  কাকলি

২৬

খোলস / চামড়া / শাবক

২৭

হরিণের চামড়ার আসন  =  অজিনাসন

২৮

সাপের খোলস  =  নির্মোক / কুঞ্চক

২৯

হরিণের চর্ম / চামড়া  =  অজিন

৩০

হাতির শাবক (বাচ্চা)  =  করভ

৩১

বাঘের চামড়া  =  কৃত্তি

৩২

ব্যাঙের ছানা  =  ব্যাঙাচি

ইচ্ছা

৩৩

হনন / হত্যা করার ইচ্ছা  =  জিঘাংসা

৩৪

জানবার ইচ্ছা  =  জিজ্ঞাসা

৩৫

অনুকরণ করার ইচ্ছা  =  অনুচিকীর্ষা

৩৬

মুক্তি পাওয়ার ইচ্ছা  =  মুক্তিকামী

৩৭

প্রতিকার করার ইচ্ছা  =  প্রতিচিকীর্ষা

৩৮

প্রবেশ করার ইচ্ছা  =  বিবিক্ষা

৩৯

সেবা করার ইচ্ছা  =  শুশ্রূষা

৪০

রমণ বা সঙ্গমের ইচ্ছা  =  রিরংসা

৪১

পান করার ইচ্ছা  =  পিপাসা

৪২

লাভ করার ইচ্ছা  =  লিপ্সা

৪৩

ক্ষমা করার ইচ্ছা  =  চিক্ষমিষা

৪৪

অনুসন্ধান করার ইচ্ছা  =  অনুসন্ধিৎসা

৪৫

মুক্তি পেতে ইচ্ছা  =  মুমুক্ষা

৪৬

উপকার করার ইচ্ছা  =  উপচিকীর্ষা

৪৭

বিজয় লাভের ইচ্ছা  =  বিজিগীষা

৪৮

জয় করার ইচ্ছা  =  জিগীষা

৪৯

বমন করিবার ইচ্ছা  =  বিবমিষা

৫০

খাইবার ইচ্ছা  =  ক্ষুধা

৫১

যেরূপ ইচ্ছা  =  যদৃচ্ছা

৫২

বেঁচে থাকার ইচ্ছা  =  জিজীবিষা

৫৩

ত্রাণ লাভ করার ইচ্ছা  =  তিতীর্ষা

৫৪

মুক্তি লাভে/পেতে ইচ্ছুক  =  মুমুক্ষু

৫৫

অপকার করার ইচ্ছা  =  অপচিকীর্ষা

৫৬

ভোজন করার ইচ্ছা  =  বুভুক্ষা

৫৭

করার ইচ্ছা  =  চিকীর্ষা

৫৮

বাস করার ইচ্ছা  =  বিবৎসা

৫৯

দান করার ইচ্ছা  =  দিৎসা

৬০

গমন করার ইচ্ছা  =  জিগমিষা

৬১

নিন্দা করার ইচ্ছা  =  জুগুপ্সা

৬২

পাওয়ার ইচ্ছা  =  ঈপ্সা

৬৩

সৃষ্টি করার ইচ্ছা  =  সিসৃক্ষা

৬৪

নির্মাণ করার ইচ্ছা  =  নির্মিসা

৬৫

প্রতিবিধান করার ইচ্ছা  =  প্রতিবিধিৎসা

৬৬

যে রূপ করার ইচ্ছা  =  যদৃচ্ছা

৬৭

উদক / জল পানের ইচ্ছা  =  উদন্যা

৬৮

হিত করার ইচ্ছা  =  হিতৈষা

৬৯

দেখবার ইচ্ছা  =  দিদৃক্ষা

৭০

প্রিয় কাজ করার ইচ্ছা  =  প্রিয়চিকীর্ষা

৭১

হরণ করার ইচ্ছা  =  জিহীর্ষা

পুরুষ

৭২

যে দার (স্ত্রী) পরিগ্রহ করেনি  =  অকৃতদার

৭৩

যে পুরুষ বিয়ে করেছে  =  কৃতদার

৭৪

পুরুষের যে পুরুষ পত্নীসহ বর্তমান  =  সপত্নীক

৭৫

পুরুষের উদ্দাম নৃত্য  =  তাণ্ডব

৭৬

যে পুরুষের স্ত্রী বিদেশে থাকে  =  প্রোষিতপত্নীক / প্রোষিতভার্য

৭৭

যে পুরুষ প্রথম স্ত্রী জীবিত থাকতে দ্বিতীয় দার (স্ত্রী) পরিগ্রহ করেছে  =  অধিবেত্তা / অধিবেদন

৭৮

যে পুরুষ স্ত্রীর বশীভূত  =  স্ত্রৈণ

৭৯

যে পুত্রের মাতা কুমারী  =  কানীন

৮০

পুরুষের কটিবন্ধ  =  সরাসন

৮১

যে পুরুষ বিয়ে করেনি  =  অকৃতদার

৮২

যে দার (স্ত্রী) পরিগ্রহ করেছে  =  কৃতদার

৮৩

যে পুরুষের চেহারা দেখতে সুন্দর  =  সুদর্শন

৮৪

পুরুষের কর্ণভূষণ  =  বীরবৌলি

৮৫

যে পুরুষের দাড়ি গোঁফ গজায়নি  =  অজাতশ্মশ্রু

নারী

৮৬

যে নারী প্রিয় কথা বলে  =  প্রিয়ংবদা

৮৭

যে নারী সুন্দরী  =  রমা

৮৮

যে নারীর পতি নেই, পুত্রও নেই  =  অবীরা

৮৯

প্রিয় বাক্য বলে যে  =  প্রিয়ভার্থী

৯০

যে নারীর স্বামী ও পুত্র মৃত =  অধীরা

৯১

যে নারীর পঞ্চ স্বামী  =  পঞ্চভর্তৃকা

৯২

যে নারী কলহপ্রিয়  =  খাপ্তানী

৯৩

যে নারীর হাসি সুন্দর  =  সুস্মিতা

৯৪

যে নারী বীর সন্তান প্রসব করে  =  বীরপ্রসূ

৯৫

যে নারী আনন্দ দান করে  =  বিনোদিনী

৯৬

যে নারী অতি উজ্জ্বল ও ফর্সা  =  মহাশ্বেতা

৯৭

যে নারী বীর  =  বীরাঙ্গনা

৯৮

যে নারীর বিয়ে হয়নি কুমারী

৯৯

যে নারী বার (সমূহ) গামিনী  =  বারাঙ্গনা

১০০

যে নারীর দুটি মাত্র পুত্র  =  দ্বিপুত্রিকা

১০১

যে নারী নিজে বর বরণ করে নেয় =  স্বয়ংবরা

১০২

যে মেয়ের বয়স দশ বৎসর  =  কন্যকা

১০৩

যে নারীর হাসি কুটিলতাবর্জিত  =  শুচিস্মিতা

১০৪

যে নারীর বিয়ে হয় না  =  অনূঢ়া

১০৫

যে নারীর বিয়ে হয়েছে  =  উড়া

১০৬

যে নারীর সন্তান বাঁচে না  =  মৃতবৎসা

১০৭

যে নারীর অসূয়া / হিংসা নাই  =  অনসূয়া

১০৮

যে নারীর সতীন / শত্রু নেই  =  নিঃসপ্ত

১০৯

যে নারীর সম্প্রতি বিয়ে হয়েছে  =  নবোঢ়া

১১০

যে নারীর কোনো সন্তান হয় না  =  বন্ধ্যা

১১১

যে নারীর সহবাসে মৃত্যু হয়  =  বিষকন্যকা

১১২

যে নারীর দেহ সৌষ্ঠব সম্পন্না  =  অঙ্গনা

১১৩

যে নারী শিশুসন্তানসহ বিধবা  =  বালপুত্রিকা

১১৪

যে নারী (বা গাভী) দুগ্ধবতী  =  পয়স্বিনী

১১৫

যে নারীর চিত্রে অর্পিতা বা নিবন্ধা  =  চিত্রার্পিতা

১১৬

যে নারী সাগরে বিচরণ করে  =  সাগরিকা

১১৭

নারীর লীলাময়ী নৃত্য  =  লাস্য

১১৮

যে নারীর নখ শূপের (কুলা) মত  =  শূর্পণখা

১১৯

নারীর কটিভূষণ  =  রশনা

১২০

নারীর কোমরবেষ্টনিভূষণ  =  মেখলা

১২১

যে নারীর স্বামী ও পুত্র জীবিত  =  বীরা / পুরন্ধ্রী

১২২

যে নারী অপরের দ্বারা প্রতিপালিতা  =  পরভূতা / পরভৃতিকা

১২৩

উত্তম বস্ত্রালঙ্কারে সুসজ্জিত নটীগণের নৃত্য  =  যৌবত

১২৪

যে নারী অঘটন ঘটাতে পারদর্শী  =  অঘটনঘটনপটিয়সী

১২৫

যে নারী জীবনে একমাত্র সন্তান প্রসব করেছে  =  কাকবন্ধ্যা

১২৬

যে নারী অন্য কারও প্রতি আসক্ত হয় না  =  অনন্যা

১২৭

যে নারী পূর্বে অন্যের স্ত্রী / বাগদত্তা ছিল  =  অন্যপূর্বা

১২৮

যে নারীর স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করেছে  =  অধিবিন্না

১২৯

যে নারীর স্বামী বিদেশে থাকে  =  প্রোষিতভর্তৃকা

১৩০

যে নারীর সূর্যও মুখ দেখতে পারে না  =  অসূর্যম্পশ্যা

১৩১

যে নারী কখনো সূর্যকে দেখেনি  =  অসূর্যম্পশ্যা

১৩২

অবিবাহিতা জ্যেষ্ঠা থাকার পরও যে কনিষ্ঠার বিয়ে হয়  =  অগ্রোদিধিষু

১৩৩

কুমারীর পুত্র  =  কানীন

১৩৪

অঘটন কাণ্ড ঘটাইতে অতিশয় পারদর্শী যে নারী  =  অঘটনঘটনপটিয়সী

১৩৫

যে নারী (বিবাহিত / অবিবাহিত) চিরকাল পিতৃগৃহবাসিনী  =  চিরন্টী

পত্নী

১৩৬

একই স্বামীর পত্নী যাহারা  =  সপত্নী

১৩৭

যার স্ত্রী মারা গিয়েছে  =  বিপত্নীক

১৩৮

পত্নীসহ বর্তমান  =  সপত্নীক

কষ্টকর / সহজে না

১৩৯

যা কষ্টে নিবারণ করা যায়  =  দুর্নিবার

১৪০

যা দমন করা কষ্টকর  =  দুর্দমনীয়

১৪১

যা সহজে পাওয়া যায় না  =  দুষ্প্রাপ্য

১৪২

যা সহ্য করা যায় না  =  দুর্বিষহ

১৪৩

যা সহজে দমন কর যায় না  =  দুর্দম

১৪৪

যাহাতে সহজে গমন করা যায় না  =  দুর্গম

১৪৫

যাহা সহজে উত্তীর্ণ হওয়া যায় না  =  দুস্তর

১৪৬

যা মুছে ফেলা যায় না  =  দুর্মোচ্য

১৪৭

যা কষ্টে জয় করা যায়  =  দুর্জয়

১৪৮

যা সহজে মরে না  =  দুর্মর

১৪৯

যা কষ্টে অর্জন করা যায়  =  কষ্টার্জিত

১৫০

যাহা সহজে লঙ্ঘন করা যায় না  =  দুর্লঙ্ঘ্য

১৫১

যা কষ্টে লাভ করা যায়  =  দুর্লভ

১৫২

যা সহজে অতিক্রম করা যায় না  =  দুরতিক্রম্য

১৫৩

যা সহজে জানা যায় না  =  দুর্জ্ঞেয়

১৫৪

কষ্টে অতিক্রম করা যায় না যা  =  দুরতিক্রম্য

যোগ্য

১৫৫

যা চিবিয়ে খাবার যোগ্য  =  চর্ব

১৫৬

যা চেটে খাবার যোগ্য  =  লেহ্য

১৫৭

যা চুষে খাবার যোগ্য  =  চূষ্য

১৫৮

যা পান করার যোগ্য  =  পেয়

১৫৯

যা পাঠ করিবার যোগ্য  =  পাঠ্য

১৬০

ঘ্রাণের যোগ্য =  ঘ্রেয়

১৬১

যা নিন্দার যোগ্য নয়  =  অনিন্দ্য

১৬২

নৌ চলাচলের যোগ্য  =  নাব্য

১৬৩

প্রশংসার যোগ্য  =   প্রশংসার্হ

১৬৪

ঘৃণার যোগ্য  =  ঘৃণার্হ / ঘৃণ্য

১৬৫

যা ক্রয় করার যোগ্য  =  ক্রেয়

১৬৬

যা খাওয়ার যোগ্য  =  খাদ্য

১৬৭

জানিবার যোগ্য  =  জ্ঞাতব্য

১৬৮

বরণ করিবার যোগ্য  =  বরেণ্য

১৬৯

ক্ষমার অযোগ্য  =  ক্ষমার্য

১৭০

যা অন্তরে ঈক্ষণ যোগ্য  =  অন্তরিক্ষ

১৭১

স্মরণের যোগ্য  =  স্মরণার্হ

১৭২

যা বিক্রয় করার যোগ্য  =  বিক্রেয়

১৭৩

রন্ধনের যোগ্য  =  পাচ্য

১৭৪

আরাধনা করিবার যোগ্য  =  আরাধ্য

১৭৫

ক্ষমার যোগ্য  =  ক্ষমার্হ

১৭৬

মান-সম্মান প্রাপ্তির যোগ্য  =  মাননীয়

১৭৭

ধন্যবাদের যোগ্য =  ধন্যবাদার্হ

১৭৮

ফেলে দেবার যোগ্য  =  ফেলনা

উপকার

১৭৯

যে উপকারীর উপকার স্বীকার করে = কৃতজ্ঞ

১৮০

উপকারীর অপকার করে যে = কৃতঘ্ন

১৮১

যে উপকারীর উপকার স্বীকার করে না  =  অকৃতজ্ঞ

বলা

১৮২

যা বলা হয়নি = অনুক্ত

১৮৩

যা বলা হয়েছে = উক্ত

১৮৪

যা বলা উচিত নয় = অকথ্য

১৮৫

যা বলা হচ্ছে =  বক্ষ্যমাণ

১৮৬

যা বলা হবে  =  বক্তব্য

১৮৭

যা প্রকাশ করা হয়নি  =  অব্যক্ত

কথা

১৮৮

যে বেশি কথা বলে  =  বাচাল

১৮৯

যিনি অধিক কথা বলেন না  =  মিতভাষী

১৯০

যিনি কম কথা বলেন  =  স্বল্পভাষী

১৯১

যা বাক্যে প্রকাশ করা যায় না  =  অনির্বচনীয়

১৯২

যা কথায় বর্ণনা করা যায় না  =  অবর্ণনীয়

ভবিষ্যৎ

১৯৩

যা হবে  =  ভাবি

১৯৪

যা ভবিষ্যতে ঘটবে  =  ভবিতব্য

১৯৫

অগ্র-পশ্চাৎ বিবেচনা করে কাজ করে না  =  অবিমৃশ্যকারী

১৯৬

যে ভবিষ্যত না ভেবেই কাজ করে  =  অবিমৃষ্যকারী

১৯৭

যে ভবিষ্যতের চিন্তা করে না  =  অপরিণামদর্শী

নাই / যায় না

১৯৮

যা জয় করা যায় না  =  অজয়

১৯৯

যা প্রতিরোধ করা যায় না  =  অপ্রতিরোধ্য

২০০

কষ্টে করা যায় যাহা  =  কষ্টকর

২০১

যা মূল্য দিয়ে বিচার করা যায় না  =  অমূল্য

২০২

যাহাতে গমন করা যায় না  =  অগম্য

২০৩

যা নিবারণ করা যায় না  =  অনিবারিত

২০৪

যা অতিক্রম করা যায় না  =  অনতিক্রম্য

২০৫

যার ঈহা (চেষ্টা) নাই  =  নিরীহ

২০৬

কোনোভাবেই যা নিবারণ করা যায় না  =  অনিবার্য

অক্ষি / চক্ষু

২০৭

চোখের নিমেষ না ফেলিয়া  =  অনিমেষ

২০৮

অক্ষির অভিমুখে  =  প্রত্যক্ষ

২০৯

যার চক্ষু লজ্জা নেই ; নির্লজ্জ / চশমখোর

২১০

চোখে দেখা যায় এমন  =  চক্ষুগোচর

২১১

অক্ষির সমীপে  =  সমক্ষ

২১২

অক্ষিতে কাম যার (যে নারীর)  =  কামাক্ষী

২১৩

চক্ষুর সম্মুখে সংঘটিত  =  চাক্ষুষ

২১৪

অক্ষিপত্রের (চোখের পাতা) লোম  =  অক্ষিপক্ষ্ণ

২১৫

চোখের কোণ  =  অপাঙ্গ

২১৬

পদ্মের ন্যায় অক্ষি বা চোখ  =  পুণ্ডরীকাক্ষ

২১৭

অক্ষির অগোচরে  =  পরোক্ষ

জন্ম

২১৮

দুবার জন্মে যা  =  দ্বিজ

২১৯

জন্মে নাই যা ; অজ

২২০

পঙ্কে জন্মে যা  =  পঙ্কজ

২২১

যে ভূমিতে ফসল জন্মায় না  =  ঊষর

২২২

শুভক্ষণে জন্ম যার  =  ক্ষণজন্মা

২২৩

অনুতে বা পশ্চাতে / জন্মেছে যে  =  অনুজ

২২৪

সরোবরে জন্মায় যা  =  সরোজ

২২৫

অগ্রে জন্মেছে যে  =  অগ্রজ

২২৬

যে জমিতে দুবার ফসল জন্মে  =  দো-ফসলি

২২৭

যে শিশু আটমাসে জন্মগ্রহণ করেছে  =  আটাসে

২২৮

পিতার মৃত্যুর পর জন্ম হয়েছে যে সন্তানের  =  মরণোত্তর জাতক

২২৯

যে জমির উৎপাদন শক্তি নেই  =  অনুর্বর

২৩০

যে সমাজের (বর্ণের) অন্তদেশে জন্মে  =  অন্ত্যজ

২৩১

পূর্বজন্মের কথা স্মরণ আছে যার  =  জাতিস্মর

জয়ন্তী

২৩২

কোনো ঘটনার ৬০ বছর পূর্তিতে অনুষ্ঠান  =  হীরক জয়ন্তী

২৩৩

কোনো ঘটনার ৫০ বছর পূর্তিতে যে অনুষ্ঠান  =  সুবর্ণ জয়ন্তী

২৩৪

কোনো ঘটনার ২৫ বছর পূর্তিতে যে অনুষ্ঠান  =  রজত জয়ন্তী

২৩৫

জয়সূচক যে উৎসব  =  জয়ন্তী

২৩৬

একশত পঞ্চাশ বছর  =  সার্ধশতবর্ষ

২৩৭

জয়ের জন্য যে উৎসব  =  জয়ন্তী

দিন

২৩৮

দিন ও রাতের সন্ধিক্ষণ  =  গোধূলি

২৩৯

দিনের পূর্ব ভাগ  =  পূর্বাহ্ণ

২৪০

দিনের মধ্য ভাগ  =  মধ্যাহ্ন

২৪১

দিনের অপর ভাগ  =  অপরাহ্

২৪২

দিনের সায় (অবসান) ভাগ  =  সায়াহ্ন

২৪৩

প্রায় প্রভাত হয়েছে এমন  =  প্রভাতকল্প

২৪৪

দিনের আলো ও সন্ধ্যার আলোর মিলন  = গোধূলি

রাত

২৪৫

রাত্রির প্রথম ভাগ  =  পূর্বরাত্র

২৪৬

গভীর রাত্রি  =  নিশীথ

২৪৭

রাত্রির মধ্য ভাগ  =  মহানিশা

২৪৮

রাত্রিকালীন যুদ্ধ  =  সৌপ্তিক

২৪৯

রাত্রির শেষ ভাগ  =  পররাত্র

২৫০

দিনের আলো ও সন্ধ্যার আলোর মিলন  =  গোধূলি

২৫১

রাতের শিশির  =  শবনম

২৫২

রাত্রির তিন ভাগ একত্রে  =  ত্রিযামা

স্থায়ী

২৫৩

ঘর নাই যার  =  হা-ঘরে

২৫৪

হওয়ার স্বভাব যার  =  নশ্বর

২৫৫

যা কখনো নষ্ট হয় না  =  অবিনশ্বর

২৫৬

যা চিরস্থায়ী নয়  =  নশ্বর

২৫৭

ক্ষণকাল ব্যাপিয়া স্থায়ী  =  ক্ষণস্থায়ী

২৫৮

যার বাসস্থান নেই  =  অনিকেত

২৫৯

যে বাস্তু থেকে উৎখাত হয়েছে  =  উদ্বাস্তু

২৬০

নষ্ট হওয়াই স্বভাব নয় যার  =  অবিনশ্বর

২৬১

যা স্থায়ী নয়  =  অস্থায়ী

২৬২

যার জ্যোতি বেশিক্ষণ স্থায়ী হয় না  =  ক্ষণপ্রভা

২৬৩

স্থায়ী ঠিকানা নেই যার  =  উদ্বাস্তু

পূর্বে

২৬৪

যা পূর্বে শোনা যায়নি  =  অশ্রুতপূর্ব

২৬৫

যা পূর্বে ছিল এখন নেই  =  ভূতপূর্ব

২৬৬

যা পূর্বে চিন্তা করা যায়নি  =  অচিন্তিতপূর্ব

২৬৭

যা পূর্বে কখনো আস্বাদিত হয় নাই  =  অনাস্বাদিতপূর্ব

২৬৮

যা পূর্বে কখনো ঘটেনি  =  অভূতপূর্ব

২৬৯

যা পূর্বে দেখা যায়নি  =  অদৃষ্টপূর্ব

রচনা

২৭০

ইতিহাস রচনা করেন যিনি  =  ঐতিহাসিক

২৭১

স্মৃতিশাস্ত্রে পণ্ডিত যিনি  =  শাস্ত্রজ্ঞ

২৭২

যিনি ভালো ব্যাকরণ জানেন  =  বৈয়াকরণ

২৭৩

যিনি ব্যাকরণ রচনা করেন  =  ব্যাকরণবিদ

২৭৪

ব্যাকরণে পণ্ডিত যিনি  =  বৈয়াকরণ

২৭৫

স্মৃতিশাস্ত্র রচনা করেন যিনি  =  শাস্ত্রকার

২৭৬

ইতিহাস বিষয়ে অভিজ্ঞ যিনি  =  ইতিহাসবেত্তা

২৭৭

যিনি স্মৃতিশাস্ত্র জানেন  =  স্মার্ত

গাছ

২৭৮

যে গাছে ফল ধরে, কিন্তু ফুল ধরে না  =  বনস্পতি

২৭৯

একবার ফল দিয়ে যে গাছ মারা যায়  =  ওষধি

২৮০

যে গাছ অন্য গাছকে আশ্রয় করে বাঁচে  =  পরগাছা

২৮১

যে গাছ কোনো কাজে লাগে না  =  আগাছা

২৮২

ফল পাকলে যে গাছ মারা যায়  =  ওষধি

২৮৩

যে গাছ থেকে ঔষধ তৈরি হয়  =  ঔষধি

একই

২৮৪

একই বিষয়ে চিত্ত নিবিষ্ট যাহার  =   নিবিষ্টচিত্ত

২৮৫

একই গুরুর শিষ্য যারা  =  সতীর্থ

২৮৬

একই সময়ে বর্তমান  =  সমসাময়িক

২৮৭

একই সময়ে  =  যুগপৎ

২৮৮

একই মাতার উদরে জাত যারা  =  সহোদর

পর

২৮৯

পরকে আশ্রয় করিয়া বাঁচিয়া থাকে যে  =  পরজীবী

২৯০

পরের শ্রী (উন্নতি) দেখিয়া যাহার মন খারাপ হয়  =  পরশ্রীকাতর

২৯১

পরের দ্বারা প্রতিপালিত যে  =  পরভূত (কোকিল)

২৯২

পরের অন্নে যে জীবন ধারণ করিয়া থাকে  =  পরান্নজীবী

২৯৩

পরকে প্রতিপালন করে যে  =  পরভৃৎ (কাক)

আপনা

২৯৪

আপনাকে হত্যা করে যে  =  আত্মঘাতী

২৯৫

আপনাকে ভুলে থাকে যে  =  আত্মভোলা

২৯৬

যার প্রকৃত বর্ণ ধরা যায় না  =  বর্ণচোরা

২৯৭

আত্মার সম্বন্ধীয় বিষয়  =  আধ্যাত্মিক

২৯৮

আপনার বর্ণ লুকায় যে  =  বর্ণচোরা

২৯৯

আপনাকে কেন্দ্র করে যার চিন্তা  =  আত্মকেন্দ্রিক

৩০০

যে আপনাকে কৃতার্থ মনে করে  =  কৃতার্থম্মন্য

৩০১

আত্মিক আপনাকে সর্বস্ব ভাবে যে  =  আত্মসর্বস্ব

৩০২

আপনাকে অত্যন্ত হীন বলিয়া ভাবে যে  =  হীনমন্য

৩০৩

আপনাকে যে পণ্ডিত মনে করে  =  পণ্ডিতম্মন্য

মৃত

৩০৪

মৃতের মত অবস্থা যার  =  মুমূর্ষু

৩০৫

মৃত জীবজন্তু ফেলা হয় যেখানে  =  ভাগাড়

৩০৬

জীবিত থেকেও যে মৃত  =  জীবনস্মৃত

৩০৭

মরিবেই যাহা  =  মরণশীল

সমস্ত / সব

৩০৮

সকলের জন্য প্রযোজ্য  =  সর্বজনীন

৩০৯

সকলের জন্য মঙ্গলকর  =  সর্বজনীন

৩১০

সকলের জন্য অনুষ্ঠিত  =  সার্বজনীন

৩১১

যিনি সর্বত্র ব্যাপিয়া থাকেন  =  সর্বব্যাপক

৩১২

সর্বজন সম্বন্ধীয়  =  সার্বজনীন

৩১৩

যিনি সব কিছুই জানেন  =  সর্বজ্ঞ

৩১৪

সমস্ত পদার্থ ভক্ষণ করে যে  =  সর্বভুক

৩১৫

সর্বজনের হিতকর  =  সর্বজনীন

৩১৬

সবকিছু গ্রাস করে যে  =  সর্বগ্রাসী

৩১৭

বিশ্বজনের হিতকর  =  বিশ্বজনীন

ব্যয়

৩১৮

যে ব্যয় করতে কুণ্ঠাবোধ করে  =  কৃপণ

৩১৯

আয় অনুসারে ব্যয় করেন যিনি  =  মিতব্যয়ী

৩২০

যা সম্পন্ন করতে বহু ব্যয় হয়  =  ব্যয়বহুল

৩২১

আয় অনুসারে ব্যয় করেন না যিনি  =  অমিতব্যয়ী

৩২২

যে অধিক ব্যয় করতে কুণ্ঠাবোধ করে  =  ব্যয়কুণ্ঠ

তুল্য

৩২৩

ঋষির তুল্য  =  ঋষিতুল্য

৩২৪

তার তুল্য  =  তাদৃশ

৩২৫

আমার তুল্য (সদৃশ)  =  মাদৃশ

৩২৬

ঋষির ন্যায়  =  ঋষিকল্প

৩২৭

ইহার তুল্য  =  ঈদৃশ

৩২৮

দেবতার তুল্য  =  দেবোপম

জয়

৩২৯

ইন্দ্রকে জয় করেন যিনি  =  ইন্দ্ৰজিৎ

৩৩০

জয়ের জন্য যে উৎসব  =  জয়োৎসব

৩৩১

শত্রুকে জয় করেন যিনি  =  শত্রুজিৎ / পরঞ্জয়

৩৩২

যা কষ্টে জয় করা যায়  =  দুর্জয়

৩৩৩

যা কষ্টে লাভ করা যায়  =  দুর্লভ

৩৩৪

ইন্দ্রিয়কে জয় করেন যিনি  =  জিতেন্দ্রিয়

ক্রম

৩৩৫

বিধিকে অতিক্রম না করে  =  যথাবিধি

৩৩৬

যা ক্রমশ বিস্তীর্ণ হচ্ছে  =  ক্রমবিস্তার্যমান

৩৩৭

যা ক্রমশ দূরে সরে যাচ্ছে  =  অপসৃয়মান

৩৩৮

ক্রমে ক্রমে আসিয়াছে যাহা  =  ক্রমাগত

৩৩৯

ক্রমকে বজায় রাখিয়া  =  যথাক্রমে

৩৪০

যা ক্রমশ ক্ষয়প্রাপ্ত হচ্ছে  =  ক্ষীয়মান

৩৪১

এক থেকে শুরু করে ক্রমাগত  =  একাদিক্রমে

৩৪২

যা ক্রমশ বর্ধিত হচ্ছে  =  ক্রমবর্ধমান / বর্ধিষ্ণু

কুল

৩৪৩

কুলের কীর্তিতে কলঙ্ক লেপন করে যে  =  কুলাঙ্গার

৩৪৪

কুলের কীর্তি বর্ধনকারী যে সন্তান  =  কুলপ্রদীপ

৩৪৫

কুলে কলঙ্ক লেপন করে যে  =  কুল কলঙ্ক

৩৪৬

কুলে বিশিষ্ট মর্যাদা আনয়ন করে যে  =  কুলতিলক

গমন

৩৪৭

বাহুতে ভর করে চলে যে  =  ভূজঙ্গ

৩৪৮

সর্বত্র গমন করে যে  =  সর্বগ

৩৪৯

লাফিয়ে চলে যে  =  প্লবগ (ব্যাঙ / বানর)

৩৫০

আকাশে গমন / বিচরণ করে যে  =  বিহগ (পাখি)

৩৫১

ভুজের সাহায্যে চলে যে  =  ভুজঙ্গ / ভুজগ

৩৫২

যে পা দিয়ে চলে না  =  পন্নগ (সর্প)

৩৫৩

যে গমন করে না  =  নগ (পাহাড়)

৩৫৪

যে উরস (বক্ষ) দিয়ে হাঁটে  =  উরগ (সর্প)

৩৫৫

যে সর্বত্র গমন করে  =  সর্বগ

৩৫৬

ইতস্তত গমনশীল বা সঞ্চরণশীল  =  বিসর্পী

৩৫৭

বুকে হেঁটে গমন করে যে  =  উরগ (সাপ)

৩৫৮

ত্বরিত গমন করতে পারে যে  =  তুরগ (ঘোড়া)

৩৫৯

জলে ও স্থলে চরে যে  =  উভচর

৩৬০

যে ভুজের সাহায্যে (এঁকে বেঁকে ) চলে  =  ভুজগ / ভুজঙ্গ (সৰ্প)

পদ্ম

৩৬১

নীল বর্ণ পদ্ম  =  ইন্দিবর

৩৬২

পদ্মের ডাটা বা নাল  =  মৃণাল

৩৬৩

শ্বেত বৰ্ণ পদ্ম  =  পুণ্ডরীক

৩৬৪

রক্ত বর্ণ পদ্ম  =  কোকনদ

৩৬৫

পদ্মের ঝাড় বা মৃণালসমূহ  =  মৃণালিনী

ক্ষুদ্র

৩৬৬

ক্ষুদ্র গ্রাম  =  পল্লীগ্রাম

৩৬৭

ক্ষুদ্র প্রলয়  =  খণ্ডপ্রলয়

৩৬৮

ক্ষুদ্র নদী  =  সারণি

৩৬৯

ক্ষুদ্র বাগান  =  বাগিচা

৩৭০

ক্ষুদ্র অঙ্গ  =  উপাঙ্গ

৩৭১

ক্ষুদ্র শিয়াল  =  খেঁকশিয়াল

৩৭২

ক্ষুদ্র কূপ  =  পাতকুয়া

৩৭৩

ক্ষুদ্র রাজ  =  রাজড়া

৩৭৪

ক্ষুদ্র রথ  =  রথার্ভক

৩৭৫

ক্ষুদ্র মৃৎপাত্র  =  ভাঁড়

৩৭৬

ক্ষুদ্র চিহ্ন  =  বিন্দু

৩৭৭

ক্ষুদ্র নালা  =  নালি

৩৭৮

ক্ষুদ্র হাঁস  =  পাতিহাঁস

৩৭৯

ক্ষুদ্রকায় ঘোড়া  =  টাট্টু

৩৮০

ক্ষুদ্র  লতা  =  লতিকা

৩৮১

ক্ষুদ্র ফোঁড়া  =  ফুসকুড়ি

৩৮২

ক্ষুদ্র জাতীয় বকের শ্রেণি  =  বলাকা

৩৮৩

ক্ষুদ্র ঢাক বা ঢাক জাতীয় বাদ্যযন্ত্র  =  নাকাড়া

৩৮৪

ক্ষুদ্র নাটক  =  নাটিকা

৩৮৫

ক্ষুদ্র বা নিচু কাঠের আসন  =  পিঁড়ি

৩৮৬

ক্ষুদ্র  গাছ  =  গাছড়া

৩৮৭

ক্ষুদ্র প্রস্তরখণ্ড  =  নুড়ি

৩৮৮

ক্ষুদ্র লেবু  =  পাতিলেবু

হাত

৩৮৯

হাতের কব্জি  =  মণিবন্ধ

৩৯০

হাতের দ্বিতীয় আঙুল  =  তর্জনী

৩৯১

হাতের চতুর্থ আঙুল  =  অনামিকা

৩৯২

হাতের তেলো বা তালু  =  করতল

৩৯৩

হাতের তৃতীয় আঙুল  =  মধ্যমা

৩৯৪

হাতের পঞ্চম আঙুল  =  কনিষ্ঠা

৩৯৫

হাতের প্রথম আঙুল (বুড়ো আঙুল)  =  অঙ্গুষ্ঠ

৩৯৬

হাতের কব্জি থেকে আঙুলের ডগা পর্যন্ত  =  পাণি

বিবিধ বাক্য সংকোচন / এক কথায় প্রকাশ

৩৯৭

অর্থ নাই যাহার  =  নিরর্থক

৩৯৮

অতিশয় ঘটা বা জাঁকজমক  =  আড়ম্বর

৩৯৯

অভ্রান্ত জ্ঞান  =  প্রমা

৪০০

অন্য ভাষায় রূপান্তর  =  অনুবাদ

৪০১

অন্য ভাষায় রূপান্তরিত  =  অনূদিত

৪০২

অন্য লিপিতে রূপান্তর  =  লিপ্যন্তর

৪০৩

অনেকের মধ্যে একজন  =  অন্যতম

৪০৪

অনেকের মধ্যে প্রধান  =  শ্রেষ্ঠ

৪০৫

অরিকে / শত্রুকে দমন করে যে  =  অরিন্দম

৪০৬

অহংকার নেই যার  =  নিরহংকার

৪০৭

অন্যদিকে মন যার  =  অন্যমনা

৪০৮

অকালে পক্ব হয়েছে যা  =  অকালপক্ব

৪০৯

অরণ্যের অগ্নিকাণ্ড  =  দাবানল

৪১০

অনায়াসে লাভ করা যায় যাহা  =  অনায়াসলভ্য

৪১১

অসম সাহস যাহার  =  অসমসাহসিক

৪১২

অকালে উৎপন্ন কুমড়া  =  অকালকুষ্মাণ্ড

৪১৩

অভিজ্ঞতার অভাব আছে যার  =  অনভিজ্ঞ

৪১৪

অন্যের অপেক্ষা করতে হয় না যাকে  =  অনপেক্ষ

৪১৫

অকর্মণ্য গবাদি পশু রাখার স্থান  =  পিঁজরাপোল

৪১৬

অপর প্রান্তের হাসি  =  বক্রোষ্ঠিকা

৪১৭

অনশনে মৃত্যু  =  প্রায়

৪১৮

অন্যের মনোরঞ্জনের জন্য অসত্য ভাষণ  =  উপচার

৪১৯

অন্য গতি নাই যার  =  অগত্যা

৪২০

অজকে (ছাগল) গ্রাস করে যা  =  অজগর

৪২১

অন্ন-ব্যঞ্জন ছাড়া অন্য আহার্য  =  জলপান

৪২২

অবজ্ঞায় নাক উঁচু করেন যিনি  =  উন্নাসিক

৪২৩

অষ্টপ্রহর (সারাদিন) ব্যবহার্য যা  =  আটপৌরে

৪২৪

অভ্র (মেঘ) লেহন / স্পর্শ করে যা  =  অভ্রংলিহ

৪২৫

অগ্রহায়ণ মাসে সন্ধ্যাকালীন ব্রত (কুমারীদের)  =  সেঁজুতি

৪২৬

অর্থ উপার্জন করা যায় যে ফসল হইতে  =  অর্থকরী

৪২৭

অহং বা আত্ম সম্পর্কে অতিশয় সচেতনতা  =  অহমিকা

৪২৮

অকালে যাকে জাগরণ করা হয়  =  অকালবোধন

৪২৯

অন্তরে জল আছে এমন যে (নদী)  =  অন্তঃসলিলা

৪৩০

অন্ন গ্রহণ করিয়া যে প্রাণধারণ করে  =  অন্নগত প্ৰাণ

৪৩১

আদি থেকে অন্ত পর্যন্ত  =  আদ্যন্ত / আদ্যোপান্ত

৪৩২

আদি নাই যাহার  =  অনাদি

৪৩৩

আবক্ষ জলে নেমে স্নান  =  অবগাহন

৪৩৪

আল্লাহর অস্তিত্বে বিশ্বাস নেই যার  =  নাস্তিক

৪৩৫

আচরণে যার নিষ্ঠা আছে  =  নিষ্ঠাবান

৪৩৬

আল্লাহর অস্তিত্বে বিশ্বাস আছে যার  =  আস্তিক

৪৩৭

আচারে নিষ্ঠা আছে যার  =  আচারনিষ্ঠ

৪৩৮

আশ্বিনমাসের পূর্ণিমা তিথি  =  কোজাগর

৪৩৯

আকাশ ও পৃথিবীর অন্তরালোক  =  ক্রন্দসী

৪৪০

স্বর্গ ও মর্ত্য  =  রোদসী

৪৪১

আকাশ ও পৃথিবী  =  ক্রন্দসী

৪৪২

আকাশে (খ-তে) ওড়ে যে বাজি  =  খ-ধূপ

৪৪৩

আয়ুর পক্ষে হিতকর  =  আয়ুষ্য

৪৪৪

আটমাস মাতৃগর্ভে থেকে ভূমিষ্ঠ হয় যে  =  আটমেসে / আটাসে

৪৪৫

আকাশে (খ-তে) চড়ে বেড়ায় যে  =  আকাশচারী / খেচর

৪৪৬

আভিজাত্যপূর্ণ মনে হলেও আসলে অর্থহীন ও বিভ্রান্তিকর  =  হিংটিংছট

৪৪৭

আশি বছরের বেশি বয়সী ব্যক্তি  =  অশীতিপর

৪৪৮

আশীর্বাদ ও অভয়দানসূচক হাতের মুদ্রা  =  বরাভয়

৪৪৯

আল্লাহর দ্বীন/ইসলাম কায়েম ও রক্ষার জন্য যিনি যুদ্ধে নিহত হন  =  শহিদ

৪৫০

ইহলোক সম্পর্কিত  =  ইহলৌকিক

৪৫১

ইন্দ্রের অশ্ব  =  উচ্চৈঃশ্রবা

৪৫২

ইন্দ্রজাল / যাদু জানেন যিনি  =  ঐন্দ্রজালিক

৪৫৩

ঈষৎ কম্পিত  =  আধত

৪৫৪

ঈষৎ আমিষ গন্ধ যার  =  আঁষটে

৪৫৫

ঈষৎ উষ্ণ  =  কবোষ্ণ

৪৫৬

ইহলোকে যা সাধারণ / সামান্য নয়  =  অলোকসামান্য

৪৫৭

উদয় হইতেছে এমন  =  উড্ডীন / উড্ডীয়মান

৪৫৮

উপস্থিত বুদ্ধি আছে যার  =  প্রত্যুৎপন্নমতি

৪৫৯

উচ্চস্থানে অবস্থিত ক্ষুদ্র কুটির  =  টঙ্গি

৪৬০

ঋণ শোধের জন্য যে ঋণ করা হয়  =  ঋণার্ণ

৪৬১

ঋতুতে ঋতুতে যজ্ঞ করেন যিনি  =  ঋত্বিক

৪৬২

এখনও শত্রু জন্মায় নাই যাহার  =  অজাতশত্রু

৪৬৩

উপদেশ ছাড়া লব্ধ প্রথম জ্ঞান  =  উপজ্ঞা

৪৬৪

এক বিষয়ে যার চিত্ত নিবিষ্ট  =  একাগ্রচিত্ত

৪৬৫

এখনও যার বালকত্ব যায়নি  =  নাবালক

৪৬৬

এক বস্তুতে অন্য বস্তুর কল্পনা  =  অধ্যাস

৪৬৭

এক থেকে শুরু করে  =  একাদিক্রমে

৪৬৮

ঐতিহাসিক কালেরও আগের  =  প্রাগৈতিহাসিক

৪৬৯

কর্ম সম্পাদনে অতিশয় দক্ষ / পরিশ্রমী  =  কর্মঠ

৪৭০

কর দান করে যে  =  করদ

৪৭১

ক্লান্তি নাই যার  =  অক্লান্ত

৪৭২

কামনা দূর হয়েছে যার  =  বীতকাম

৪৭৩

কোথাও উঁচু কোথাও নিচু  =  বন্ধুর

৪৭৪

কাচের তৈরি বাড়ি  =  শিশমহল

৪৭৫

কর্মে যাহার ক্লান্তি নাই  =  অক্লান্তকর্মী

৪৭৬

কথার মধ্যে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্রসঙ্গ বা প্রবচনাদি প্রয়োগ  =  বুক্‌নি

৪৭৭

কোনটা দিক / বিদিগ এই জ্ঞান নাই যাহার  =  দ্বিগ্বিদিগজ্ঞানশূন্য

৪৭৮

কি করতে হবে তা বুঝতে না পারা  =  কিংকর্তব্যবিমূঢ়

৪৭৯

কাজে যার অভিজ্ঞতা আছে  =  করিতকর্মা

৪৮০

কোনো কিছু থেকে যার ভয় নেই  =  অকুতোভয়

৪৮১

গলায় কাপড় দিয়া  =  গলবস্ত্ৰ

৪৮২

খেয়া পার করে যে  =  পাটনী

৪৮৩

গাছে উঠতে পটু যে  =  গেছো

৪৮৪

গ্রীবা সুন্দর যার  =  সুগ্রীব

৪৮৫

গুরুর বাসগৃহ  =  গুরুকুল

৪৮৬

গদ্যপদ্যময় কাব্য  =  চম্পু

৪৮৭

গরুর খুরে চিহ্নিত স্থান  =  গোষ্পদ

৪৮৮

ঘুমে আচ্ছন্ন যে  =  ঘুমন্ত / সুপ্ত

৪৮৯

ঘরের অভাব  =  হা-ঘর

৪৯০

চিন্তার অতীত  =  চিন্তাতীত

৪৯১

চৈত্র মাসের ফসল  =  চৈতালি

৪৯২

চারি শাখা- হস্তী, অশ্ব, রথ ও পদাতিক বিশিষ্ট সেনা  =  চতুরঙ্গ

৪৯৩

ছল / ছলনা করিয়া কান্না  =  মায়াকান্না

৪৯৪

জাগিয়া রহিয়াছে এমন  =  জাগন্ত / জাগরুক

৪৯৫

জ্বলছে যে অর্চি (শিখা)  =  জ্বলদর্চি

৪৯৬

জ্ঞান লাভ করা যায় যে ইন্দ্রিয় দ্বারা  =  জ্ঞানেন্দ্রিয়

৪৯৭

জ্বল্ জ্বল্ করছে যা  =  জাজ্বল্যমান

৪৯৮

জলপানের জন্য দেয় অর্থ  =  জলপানি (বৃত্তি)

৪৯৯

ঠেঙিয়ে ডাকাতি করে যারা  =  ঠ্যাঙারে

৫০০

ঠিকমতো নাম-ধাম আছে যাহাতে  =  ঠিকানা

৫০১

ঢাকায় উৎপন্ন  =  ঢাকাই

৫০২

তল স্পর্শ করা যায় না যার  =  অতলস্পর্শী

৫০৩

তৃণাচ্ছাদিত ভূমি  =  শাদ্বল

৫০৪

তিন মোহনার মিলন যেখানে  =  ত্রিমোহনা

৫০৫

দর্শন করা হয়েছে এমন  =  প্রেক্ষিত

৫০৬

দান গ্রহণ করা উচিৎ নয় যার থেকে  =  অপ্রতিগৃহ্য

৫০৭

ত্রিকালের ঘটনা জানেন যিনি  =  ত্রিকালদর্শী / ত্রিকালজ্ঞ

৫০৮

দেহ সম্বন্ধীয়  =  দৈহিক

৫০৯

দ্বারে থাকে যে  =  দৌবারিক

৫১০

দিনে একবার আহার করে যে  =  একাহারী

৫১১

দেখে চোখের আশা মেটে না যাকে  =  অদৃপ্তদৃশ্য

৫১২

দমন করা যায় না যাকে  =  অদম্য

৫১৩