স্বর্ণকুমারী দেবী



স্বর্ণকুমারী দেবী (১৮৫৫-১৯৩২)


বাঙালি কবি, কথাসাহিত্যিক, সংগীতকার ও সমাজ সংস্কারক স্বর্ণকুমারী দেবী ছিলেন আধুনিক বাংলা সাহিত্যের প্রথম মহিলা ঔপন্যাসিক । ঠাকুর বাড়ির শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক পরিবেশে তিনি শিক্ষা লাভ করেন ।

 

সাহিত্যিক উপাদান

সাহিত্যিক তথ্য

জন্ম

স্বর্ণকুমারী দেবী ২৮ আগস্ট, ১৮৫৫ সালে কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুর পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

পরিচিতি

তিনি ছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বোন

সম্পাদনা

তিনি ‘ভারতী’ (১৮৭৭) পত্রিকা সম্পাদনা (১৮৮৪-৯৪) করেন। এ পত্রিকার প্রথম সম্পাদক ছিলেন দ্বিজেন্দ্রনাথ ঠাকুর । কিশোর পত্রিকা ‘বালক’ প্রতিষ্ঠা তাঁর অমর কীর্তি।

সমিতি গঠন

অনাথ ও বিধবাদের সাহায্যার্থে ঠাকুর বাড়ির অন্যদের নিয়ে ‘সখিসমিতি' (১৮৮৬) গঠন করেন। এ নামটি দিয়েছেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং এ সমিতির অর্থ সংগ্রহের জন্য তিনি ‘মায়ার খেলা' নাটকটি রচনা করেন।

পুরস্কার

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক ‘জগত্তারিণী স্বর্ণপদক’ (১৯২৭) লাভ করেন।

সাহিত্যকর্ম

স্বর্ণকুমারী দেবীর সাহিত্যকর্মসমূহ:

উপন্যাস:দীপনির্বাণ' (১৮৭৬): এটি তার প্রথম প্রকাশিত উপন্যাস, যা জাতীয়তাবাদী চেতনায় লেখা ।

‘মেবার রাজ’ (১৮৭৭),

‘ছিন্ন মুকুল' (১৮৭৯),

‘মালতী’ (১৮৮০),

‘হুগলির ইমাম বাড়ি' (১৮৮৮),

‘বিদ্রোহ’ (১৮৯০),

‘স্নেহলতা’ (১৮৯২),

‘কাহাকে ’ (১৮৯৮),

‘বিচিত্রা” (১৯২০),

‘স্বপ্নবাণী' (১৯২১),

‘মিলনরাত্রি' (১৯২৫)।

নাটক:

‘বসন্ত উৎসব’ (১৮৭৯),

‘বিবাহ উৎসব' (১৯০১),

‘দেবকৌতুক' (১৯০৫),

‘কনে বদল' (১৯০৬),

পাকচক্ৰ’ (১৯০৬),

রাজকন্যা’ (১৯১১),

নিবেদিতা' (১৯১৭),

যুগান্ত' (১৯২২),

দিব্যকমল' (১৯৩০)।

কাব্য: 

গাথা’ (১৮৯০),

‘কবিতা ও গান’ (১৮৯৫)।

বিজ্ঞানবিষয়ক প্রবন্ধ:

পৃথিবী’ (১৮৮২)।

মৃত্যু

তিনি ৩ জুলাই, ১৯৩২ সালে মারা যান।

 

এই পোস্টগুলি আপনার ভাল লাগতে পারে:

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন